Seniors

SENIORS

অনটারিও-র বরিষ্ঠ নাগরিকদের প্রতি: আপদকালীন পরিস্থিতির জন্য কীভাবে প্রস্তুত থাকতে হবে

অনটারিও-র অধিবাসীরা সব ধরনের আপদকালীন পরিস্থিতিরই মোকাবিলা করেছে, তুষার ঝঞ্ঝা ও বৈদ্যুতিক বিপর্যয় থেকে শুরু করে টর্নেডো ও শিল্প দুর্ঘটনা সব কিছুই।

যে কোনো সময় আপদকালীন পরিস্থিতির উদ্ভব হতে পারে, যেহেতু কোনও সাহায্য এসে পৌঁছাতে পৌঁছাতে কিছুটা দেরী হতে পারে, তাই প্রস্তুত থাকা গুরুতর। সেই কারণেই প্রত্যেকেরই একটা আপদকালীন পরিস্থিতির উপযোগী পরিকল্পনা থাকা উচিত এবং প্রত্যেকের কাছে নিজেদের পরিচর্যার জন্য কমপক্ষে তিন দিনের মতো ব্যবস্থা থাকার মতো সরঞ্জাম সম্পন্ন কিট্‌ থাকতে হবে।

বিস্তারিত জানতে হলে আরও পড়ুন ।

ধাপ ১: একটা পরিকল্পনা তৈরি করা

আপদকালীন পরিস্থিতিতে, আপনার কাছে অন্যান্য দিনের মতো সুবিধা ব্যবহার করার সুযোগ নাও থাকতে পারে এবং আপনাকে নিজের বাড়ী খালি করে দেবার অনুরোধও করা হতে পারে। প্রস্তুত হয়ে থাকার প্রথম ধাপ বলতে আপনি সেক্ষেত্রে কি করবেন সেটা ভাবতে পারা বোঝায়।

নিম্নলিখিত বিষয়গুলি আপনার পরিকল্পনার অন্তর্ভুক্ত হওয়া উচিত

• যদি আপনাকে বাড়ী ছেড়ে যেতে হয় সেক্ষেত্রে যাবার মতো দুটো নিরাপদ স্থান। এর মধ্যে একটা কাছাকাছি হওয়া উচিত, যেমন ধরা যাক স্থানীয় পাঠাগার বা সামাজিক মিলন স্থান। আর আরেকটা আরও অনেকটা দূরে হওয়া উচিত যদি দেখা যায় আপদকালীন পরিস্থিতিটি অনেকটা এলাকাকে ক্ষতিগ্রস্ত করে থাকে।

• একটি পারিবারিক যোগাযোগের পরিকল্পনা। আপদকালীন পরিস্থিতিতে, স্থানীয় টেলিফোন লাইন এবং নেটওয়ার্কগুলি কাজ নাও করতে পারে। শহরের বাইরের দুই-একটা যোগাযোগের নম্বর চিহ্নিত করে রাখুন যেখানে আপনি এবং আপনার প্রিয়জনেরা যোগাযোগ করার জন্য ফোন করতে পারেন এবং তথ্যাদি আদান-প্রদান করতে পারেন।

• এমন কিছু ব্যক্তিদের তালিকা যাদের নিয়ে আপনার ব্যক্তিগত সহায়তার নেটওয়ার্ক গড়ে উঠতে পারে। এর মধ্যে এমন সব ব্যক্তিরা থাকবেন যারা আপনার দরকার হলে আপনাকে সাহায্য করতে সক্ষম হবেন। এর মধ্যে পরিবারের সদস্যরা, প্রতিবেশীরা এবং স্বাস্থ্যকর্মী ও ব্যক্তিগত সহায়তাকারী কর্মীরা অন্তর্ভুক্ত হবেন।

পরিকল্পনা বিষয়ক পরামর্শ

• পরিষেবা প্রদানকারীদের সাথে যোগাযোগ। যদি আপনার পরিবারের কাউকে নিয়মিত বাড়ির বাইরের থেকে চিকিতসা করাতে হয় বা বাড়ীতে এসে সহযোগিতামূলক পরিষেবা নিতে হয়, তাহলে সেই পরিষেবা প্রদানকারীর সাথে আলোচনা করে কোনো সহযোগিতা পাবার ব্যবস্থা কিভাবে হবে সেই নিয়ে পরিকল্পনা তৈরি করুন।

• কারো সাথে ঘনিষ্ঠ বন্ধুত্ব করুন। আপনি যাকে ভরসা করেন এমন কারো কাছে অতিরিক্ত এক গোছা চাবি দিয়ে রাখার কথা ভেবে দেখুন এবং তাকে জানিয়ে রাখুন যে আপনার আপদকালীন সরঞ্জামের কিট আপনি কোথায় রাখেন। কোনো আপদকালীন পরিস্থিতিতে যেন সেই ব্যক্তিটি আপনাকে খুঁজে দেখেন তেমন ব্যবস্থা করে রাখুন।

• স্থানান্তরিত হবার জন্য প্রস্তুত থাকুন। যদি স্থানান্তরিত হবার মতো পরামর্শ দেওয়া হয় তাহলে কোনো নিরাপদ স্থানে কিভাবে যাবেন তার পরিকল্পনা করুন। আপদকালীন পরিস্থিতিতে জীবনদায়ী সরঞ্জামের কিট প্রস্তুত রাখুন (ধাপ ২ দেখুন)।

• নিজের পোষা প্রাণী(দের) বিষয়ে পরিকল্পনা করুন। অনেক সময় কেবলমাত্র যেসব প্রাণীদের থেকে পরিষেবা নেওয়া সম্ভব তাদেরকেই অভ্যর্থনা কেন্দ্রগুলিতে আনার অনুমতি দেওয়া হয়। সম্ভব হলে, এমন কাউকে বেছে রাখুন যে আপনাকে বাড়ি ছেড়ে চলে যেতে হলে আপনার পোষা প্রাণী(দের) যত্ন নেবেন।

• আপনার বসবাসের পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করুন। আপনি কি কোনো বিচ্ছিন্ন কমিউনিটিতে বসবাস করেন? কোনো সুউচ্চ বাড়ীতে থাকেন?আপনার নিজের বা আপনার সাথে বাস করেন এমন কোনো ব্যক্তি কি হাঁটতে পারেন না? বাড়ী খালি করে যাবার পরিকল্পনাগুলির সম্পর্কে পরিচিত হোন এবং আপনার বিল্ডিং ম্যানেজার বা প্রতিবেশীদের সাথে কথা বলে রাখুন যেন দরকারে কাজে লাগার মতো কোনো বিশেষ ব্যবস্থা করে রাখা হয়।

আপনার পরিকল্পনা প্রস্তুত হয়ে যাবার পর

• আপনার পরিবার ও বন্ধুদের সাথে আপনার পরিকল্পনার বিষয়ে আলোচনা করে রাখুন।

কোনো বিশেষ ধরনের প্রয়োজন থাকলে কি করতে হবে সেই বিষয়ে অন্যান্যদেরকে প্রশিক্ষিত করে রাখুন যেমন ধরা যাক কিভাবে চিকিতসা সংক্রান্ত সরঞ্জাম ব্যবহার করতে হবে অথবা ওষুধ দিতে হবে।

যারা আপনার ব্যক্তিগত সহায়তাকারী নেটওয়ার্কের অংশ হতে চেয়েছেন তাদের সাথে আপনার পরিকল্পনাগুলিকে পরখ করে দেখুন।

সচেতন থাকুন এবং নির্দেশগুলি মেনে চলুন। আপদকালীন পরিস্থিতির আগে ও পরে দিকে খবর শুনতে থাকুন। প্রাথমিক প্রতিক্রিয়াকারীদের এবং সরকারি পরামর্শ মেনে চলুন।

অন্যান্য পরামর্শ

আপনার স্থানীয় মিউনিসিপাল অফিসের সাথে যোগাযোগ করে কোন্‌ ফোন নম্বর ব্যবহার করলে কোনো আপদকালীন পরিস্থিতিতে বিস্তারিত তথ্য পাওয়া করা যাবে সেটা জেনে নিন (২১১, ৩১১ অথবা অন্য কিছু)। যখন তাতক্ষণিক ভাবে কারো শারীরিক সুস্থতা, নিরাপত্তা বা সম্পত্তি বজায় রাখার জন্য সাহায্য দরকার হবে কেবল তখনই ৯১১ নম্বরটি ব্যবহার করুন। এটাও জেনে নিন যে তাদের কোনো “অরক্ষিত ব্যক্তিদের” নথিভুক্ত করার ব্যবস্থা আছে কিনা এবং তার জন্য আপনাকে চুক্তিতে স্বাক্ষর করতে হবে কিনা।

সতর্ক বার্তা সম্পর্কে জানবার জন্য স্বাক্ষর করা। আপনি অন-লাইনে বিনা শুল্কে আপদকালীন পরিস্থিতির সম্পর্কে সতর্কতামূলক বার্তা পাবার জন্য স্বাক্ষর করে রাখতে পারেন যে ক্ষেত্রে ইমেইল বা পাঠ্য চিঠির আকারে সতর্কতামূলক বার্তা পাঠানো হবে। আমাদের ওয়েবসাইট www.ontario.ca/beprepared দেখুন এবং সেখানকার লিংকগুলি অনুসরণ করুন।

ধাপ ২: একটা আপদকালীন সরঞ্জামের কিট্‌ তৈরি করা

আপনার আপদকালীন জীবনরক্ষাকারী সরঞ্জামের কিটে আপনার দরকারি সব কিছুই থাকা উচিত যার সাহায্যে আপনার এবং আপনার পরিবারকে অন্তত তিন দিন নিরাপদে রাখা যাবে ও দেখাশোনা করা যাবে। এই তালিকাটি এমন একটা রূপরেখা নির্মাণ করে যার মধ্যে সমস্ত দরকারি জিনিস, আপনার নিজস্ব ধরনের প্রয়োজনীয়তা, এবং সে সব সরঞ্জাম প্রস্তুত রাখতে হবে যা বাড়ি ছেড়ে দিতে হলে আপনার কাজে লাগবে।

আপনার জীবনরক্ষার সরঞ্জামের কিটে কি কি জিনিস রাখবেন

প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র

 খাদ্য ও কৌটো খোলার সরঞ্জাম (পচে যাবে না এমন খাবার এবং সহজে রান্না করা যাবে এমন উপাদানসমূহ, তিন দিনের পক্ষে যথেষ্ট পরিমাণে)

 জল (প্রতি ব্যক্তির জন্য প্রতি দিন ৪ লিটার করে)

 ফ্ল্যাশলাইট

 রেডিও (হাতল ঘুরিয়ে চালাবার মতো বা ব্যাটারি চালিত)

 অতিরিক্ত ব্যাটারি

 হাত পরিষ্কারক বা ভেজা টাওলেটস

 প্রাথমিক চিকিতসার সরঞ্জাম

 ওষুধ(সমূহ)

 জরুরি কাগজপত্র(পরিচয় পত্র, যোগাযোগ করার জন্য ব্যক্তিদের তালিকা, প্রেস্‌ক্রিপশনের প্রতিলিপিসমূহ ইত্যাদি)

 টাকা(এবং গাড়ির অতিরিক্ত চাবি)

 হুইসিল(প্রয়োজনে দৃষ্টি আকর্যণ করার জন্য)

বিশেষ ক্ষেত্রে বিবেচ্য বিষয়সমূহ

 চিকিতসার জন্য দরকারি জিনিসপত্র এবং সরঞ্জাম (বেতের লাঠি, হাঁটার সরঞ্জাম বা ওয়াকার, কানে শোনার যন্ত্র ও ব্যাটারি, শ্বাসপ্রশ্বাস করায় সাহায্যকারী সরঞ্জাম ইত্যাদি)

 প্রেসক্রিপশন অনুসারে নির্মিত চশমা এবং জুতো

 কৃত্রিম দাঁতের পাটি এবং তার সরঞ্জাম

 যদি আপনার কোনো পোষা প্রাণী থাকে, তাহলে পোষা প্রাণীদের খাবার এবং দরকারি সরঞ্জাম

স্থানান্তরে যাবার জন্য অতিরিক্ত সরঞ্জাম

 জামা-কাপড়, জুতো

 ঘুমানোর তোষক বা চাদর

 ব্যক্তিগত সরঞ্জামসমূহ (সাবান, দাঁতের মাজন, স্নানঘরে ব্যবহার্য সরঞ্জামসমূহ)

 খেলার তাস বা ভ্রমণ সহযোগী খেলার সরঞ্জাম

অন্যান্য পরামর্শ

• এই সব সরঞ্জাম একটা সহজে বহনযোগ্য ব্যাগ বা চাকা লাগানো বাক্সে রাখুন।

• আপনার আপদকালীন জীবনরক্ষার সরঞ্জামের কিট্‌ এমন কোনো স্থানে রাখুন যেখানে নাগাল পাওয়া সহজ হয়।

• আপনার সেল ফোন বা মোবাইল ফোনের চার্জ সম্পূর্ণ মাত্রায় দিয়ে রাখুন।

আমার আপদকালীন পরিস্থিতি সংক্রান্ত পরিকল্পনা বিষয়ক তথ্য

নিম্নলিখিত ফর্মগুলি পূরণ করুন এবং এমন কোনো স্থানে রাখুন যেন আপনি এবং অন্যান্যরা সেটা খুঁজে পেতে পারেন। দরকার মতো এর মধ্যে পরিবর্তন করুন। এর একটা প্রতিলিপি আপনার জরুরিভিত্তিক জীবনরক্ষার সরঞ্জামের কিটে রেখে দিন।

আমার সহায়তাকারীদের নেটওয়ার্ক

যে সমস্ত ব্যক্তি ইতিমধ্যেই আপনার সাথে সহযোগিতা করেন এবং অন্যান্য এমন সব ব্যক্তি যারা আপদকালীন পরিস্থিতিতে আপনাকে সাহায্য করতে পারেন তাদের তালিকা: চিকিতসকেরা, ওষুধ বিক্রেতারা, ব্যক্তিগত সহায়তাকারী কর্মীরা, বাড়ীতে গিয়ে সাহায্যকারী কর্মীরা (যারা দরকার হলে সাহায্য করার কাজ করেন), তাছাড়া পরিবারের লোকেরা, বন্ধুরা, এবং প্রতিবেশীরা।

আমার সহায়তাকারীদের নেটওয়ার্ক

আমার নিরাপদে থাকার স্থানসমূহ

কোনো আপদকালীন পরিস্থিতিতে, আপনাকে হয়তো বাড়ি ছেড়ে থাকতে হতে পারে। এমন দুটো স্থানের কথা লিখে রাখুন যেখানে আপনি যেতে পারেন, একটা হবে কাছাকাছি, অন্যটা আরও অনেকটা দূরে (আপনার প্রতিবেশীদের গণ্ডীর বাইরে)। এমন কয়েকটা উদাহরণ হল, স্থানীয় পাঠাগার, পূজা করার স্থান, বা কমিউনিটির কেন্দ্রীয় মিলন স্থান।

আমার নিরাপদে থাকার স্থানসমূহ

আমার পারিবারের সাথে যোগাযোগের পরিকল্পনা

আপদকালীন পরিস্থিতিতে, স্থানীয় টেলিফোন এবং ইমেইল মাধ্যমে যোগাযোগের নেটওয়ার্ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে থাকতে পারে। এমন কাউকে চিহ্নিত করুন যে কিনা আপনার শহরের/গঞ্জের বাইরে থাকেন যার সাথে আপনি এবং পরিবারের অন্যান্য ব্যক্তিরা যোগাযোগ করতে পারবেন এবং তথ্যাদি আদান-প্রদান করতে পারবেন। যদি শহরের বাইরের কোনো বিকল্প উপলব্ধ না থাকে, তাহলে জনগোষ্ঠীর মিলন কেন্দ্র বা সাংস্কৃতিক মিলন কেন্দ্রের কথা বিবেচনা করে দেখুন।

আমার পারিবারের সাথে যোগাযোগের পরিকল্পনা

চিকিতসা সংক্রান্ত জরুরি তথ্য

আপনার বাড়ির প্রত্যেকের শারীরিক স্বাস্থ্যের অবস্থা এবং বিশেষ প্রয়োজনীয়তাসমূহ নোটের আকারে লিখে রাখুন, পাশাপাশি কি কি ওষুধ খাওয়াতে হয় এবং কি কি চিকিতসা সরঞ্জাম ব্যবহার করতে হয় সেগুলিও লিখে রাখুন।

চিকিতসা সংক্রান্ত পরিস্থিতি

ুধের প্রয়োগ

আমার আপদকালীন জীবনরক্ষার সরঞ্জামের কিট্‌ রাখার স্থান

আপনার কিট্‌ কোথায় রাখা আছে তার একটা নোট তৈরি করে রাখুন যেন অন্য কেউ যদি আপনাকে সহযোগিতা করতে চান সেটাকে সহজে খুঁজে পেতে পারেন।

আমার আপদকালীন জীবনরক্ষার সরঞ্জামের কিট্‌ রাখার স্থান